নিয়মিত একটি এলাচ খেলেই এড়াতে পারবেন ৭টি রোগ

খাবারে স্বাদ বাড়ানোই শুধু নয়। নিয়মিত এলাচ খেলে শুধু স্বাদকোরকই নয়, ভাল থাকবে আপনার শরীর স্বাস্থ্যও।

জানা যাচ্ছে, বিভিন্ন খাবারে এলাচ মশলা হিসেবে ব্যবহার হলেও, এলাচের রয়েছে বহু নিরাময় গুণ। জেনে নিন সেই গুণাগুণ।

১. সর্দি-কাশি থেকে মুক্তি দেয়। চায়ের সঙ্গে মধু মেশানো এলাচ খেলে কমতে পারে সর্দি-কাশির উপদ্রব।

২. নিয়মিত এলাচ খেলে শরীরে রক্ত সঞ্চালন স্বাভাবিক থাকে।

৩. এলাচ ওজন কমাতে সাহায্য করে।

৪. এলাচের মধ্যে থাকে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। যা ত্বকে ছাপ, বলিরেখা পড়তে বাধা দেয়।

৫. মুখের দুর্গন্ধ হতে বাঁচতে মুখে রাখুন দুই-তিনটি এলাচ।

৬. নিয়মিত এলাচ খেলে কমতে পারে ক্যানসারের সম্ভবনা।

৭. মুখের ঘা, মাড়ির ক্ষত ইত্যাদিতে এলাচ অব্যর্থ ওষুধের কাজ করে।

মাত্র ৭ দিনেই দুইটি খাবার কমাবে পেটের অতিরিক্ত চর্বি, যে ভাবে তৈরি করবেন

পেটের অতিরিক্ত চর্বি রোগের বাসা। অতিরিক্ত চর্বি কারণে সহজে শরীরে বিভিন্ন ধরনের রোগ হয়ে থাকে। তাই পেটের অতিরিক্ত চর্বি অবশ্যই কমিয়ে ফেলতে হবে। আধুনিক জীবনযাত্রা, অনিয়মিত খাদ্যাভ্যাসের কারণে যেসব অসুখ সহজেই শরীরে বাসা বাঁধে তার অন্যতম ফ্যাটি লিভার।চিকিৎসকদের মতে, আমাদের প্রত্যেকের লিভারেই একটা নির্দিষ্ট পরিমাণে চর্বি থাকে।

সেটাই স্বাভাবিক। কিন্তু মাত্রাতিরিক্ত চর্বি জমে গেলে তা স’মস্যার কারণ হয়ে দাঁড়ায়। তবে পেটের অতিরিক্ত চর্বি কমাবে ২ ঘরোয়া খাবার। এই খাবার আমাদের খুবই পরিচিত। তা হলো রসুন ও মধু । যারা এই স’মস্যায় ভুগছেন তারা খেতে পারেন রসুন ও মধু।সাত দিন খালি পেটে রসুন-মধু খেলে পেটের অতিরিক্ত মেদ কমবে। এ দুটো উপাদান

শক্তিশালী অ্যান্টিবায়োটিক। এছাড়া রসুন-মধু একসঙ্গে খেলে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও বাড়ে।রসুন বাজে কোলেস্টেরল কমাতে ও কার্ডিওভাসকুলার সমস্যায় উপকার পাওয়া যায়। আর মধুতে রয়েছে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, ভিটামিন ও মিনারেল। পেটের অতিরিক্ত চর্বি কমাতে রসুন-মধু তৈরি করার উপায় জানিয়েছে স্বাস্থ্যবিষয়ক ওয়েবসাইট ডেমিক।

আসুন জেনে নেই কীভাবে তৈরি করবেন রসুন ও মধুর মিশ্রণ।রসুন ও মধুর মিশ্রণ: এক থেকে দুটো রসুন নিয়ে খোসা ছাড়িয়ে কোয়াগুলো ভালোভাবে পেস্ট করে নিন। এবার এক টেবিল চামচ রসুন পেস্ট নিয়ে এর মধ্যে মধু দিন। প্রতিদিন খালি পেটে মিশ্রণটি খেলে পেটের অতিরিক্ত চর্বি কমাতে ও রোগ প্র’তিরোধ ক্ষমতা বাড়বে।তবে কাঁচা রসুন ও মধু খেতে অসুবিধা হলে এক গ্লাস গরম পানিতে রসুন ও মধু মিশিয়ে খেতে পারেন।